উৎসবে নাড়ু সন্দেশ

ক্ষীর ছাঁচ

যা লাগবে : দুধ এক কাপ, পোলাওয়ের চালের গুঁড়া ১-৪ কাপ, ব্লেন্ড করা মিহি নারিকেল ১-২ কাপ, ক্ষীরসা ১ কাপ, গুড় কুচি ১-২ কাপ, ঘি ২ টেবিল চামচ, এলাচ গুঁড়া সামান্য।

যেভাবে করবেন : দুধে চালের গুঁড়া গুলে নিন। ননস্টিক প্যানে বসিয়ে দিন। নেড়েচেড়ে ক্ষীরসা অ্যাড করুন। ঘন ঘন নাড়তে থাকুন। নারিকেল কোরা দিন। নারিকেলের পানি বের হয়ে টেনে স্টিকি হয়ে গেলে গুড় ও ঘি দিন। আবারও নাড়তে থাকুন। ঘি ভেসে পুরোটা তাল পাকিয়ে উঠে এলে এলাচ গুঁড়া ছড়িয়ে নামিয়ে নিন। ছাঁচে ঘি মাখান। তৈরি করা

মিশ্রণ থেকে কিছুটা করে নিয়ে ছাঁচে চেপে পছন্দমতো শেপ দিন।

ঠাণ্ডা হলেই ক্ষীর ছাঁচ পরিবেশনের জন্য প্রস্তুত।

মুড়ির মোয়া

যা লাগবে : মুড়ি ২ কাপ, গুড় ৩ ভাগের ২ কাপ, পানি ১ টেবিল চামচ।

যেভাবে করবেন : শুকনো প্যানে মুড়িগুলো মৃদু আঁচে ভেজে মচমচে করে নিন। একটা ননস্টিক পাত্রে গুড় এবং পানি নেড়ে নেড়ে জ্বাল দিন। এক তারের সিরা তৈরি করে মুড়িগুলো দিয়ে নেড়েচেড়ে মিশান। দলা ধরে এলে নামিয়ে নিন। হাতে পানি মেখে গরম অবস্থাতেই দ্রুত কিছুটা করে মুড়ি নিয়ে চেপে চেপে মোয়া বানিয়ে নিন।

নারিকেল সন্দেশ

যা লাগবে : কোরানো নারিকেল দুই কাপ, দুধ আধা কাপ, গুঁড়া দুধ আধা কাপ, চিনি আধা কাপ, মাওয়া ১-৩ কাপ, ঘি এক টেবিল চামচ, এলাচ গুঁড়া ১-৩ চা চামচ, সুজি এক টেবিল চামচ।

যেভাবে করবেন : আধা কাপ দুধ দিয়ে কোরানো নারিকেল মিহি ব্লেন্ড করে নিন। ননস্টিক প্যানে নারিকেল এবং সুজি নিয়ে মৃদু আঁচে নাড়ুন। সুজি ফুটলে চিনি এবং গুঁড়া দুধ দিয়ে নাড়তে থাকুন। দুধ শুকিয়ে গেলে মাওয়া দিয়ে মিশান। নারিকেল প্যান ছেড়ে উঠে এলে এলাচ গুঁড়া ছড়িয়ে নামান। একটু ঠাণ্ডা হলে ছাঁচে ঘি মাখিয়ে নারিকেল সন্দেশ বানিয়ে নিন। ঠাণ্ডা করে ছাঁচ সন্দেশ সেট করে নিন।

নারিকেলের নাড়ু

যা লাগবে : কোরানো নারিকেল (বড়) একটা, গ্রেট করা আখের গুড় ২৫০ গ্রাম।

যেভাবে করবেন : কোরানো নারিকেলের সঙ্গে গুড় মিশিয়ে ভালো করে মাখিয়ে নিন। ননস্টিক প্যানে মৃদু আঁচে নারিকেল গুড়ের মিশ্রণ বসান। ক্রমাগত নেড়ে রান্না করুন। স্টিকি হয়ে নারিকেল প্যান থেকে উঠে এলে নামিয়ে নিন। হালকা ঠাণ্ডা করে ছোট ছোট নাড়ু বানান। ঠাণ্ডা হয়ে নাড়ু শক্ত হলে বক্সে ভরে রাখুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *